Indian Prime Time
True News only ....

মহানগরীতে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনায় মৃত ১ ও আহত ১২ জন

- sponsored -

- sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored -

চয়ন রায়ঃ কলকাতাঃ করোনা মহামারীর জেরে গণপরিবহণ বন্ধ ছিল। রাজ্য সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী আজ দেড় মাস পর রাস্তায় নামলো বাস। আর বাস চালানোর প্রথম দিনই কলকাতার রেড রোডে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে যায়।

জানা গেছে যে, মিনি বাসটি হাওড়া থেকে মেটিয়াবুরুজের দিকে যাচ্ছিল। কিন্তু হঠাৎই রেড রোডের উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। ঠিক তখনই মিনি বাসের সামনে একজন বাইক আরোহী চলে আসায় বাইক সমেত মিনি বাসটির নীচে আটকে যান। এমত পরিস্থিতিতে মিনি বাসটি ফোর্ট উইলিয়ামের ইস্ট গেটের পাঁচিলে গিয়ে সজোরে ধাক্কা মারে। ফলে মিনি বাসটির কিছুটা অংশ পাঁচিল ভেঙে সংরক্ষিত এলাকার ভিতরে ঢুকে পড়ে।

এরপরই উপস্থিত জনতা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। ধাক্কার তীব্রতায় মিনি বাসটির সিট দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। সামনের কাঁচও ভেঙে গেছে। তারপর মিনি বাসটির মধ্যে আটকে থাকা প্রায় জনা ৩০ যাত্রীকে উদ্ধার করতে শুরু করেন। এর পাশাপাশি পুলিশের কাছেও খবর দেওয়া হয়। খবর পাওয়া মাত্রই পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায়। পুলিশ বাহিনীকে সাহায্য করতে সেনা জওয়ানরাও ঘটনাস্থলে এগিয়ে আসেন।

এরপরেই দ্রুত মিনি বাসটিকে তিনটি ক্রেনের মাধ্যমে সরিয়ে দেওয়া হয়। মিনি বাসটির নীচে আটকে থাকা বাইক আরোহীকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। বাইকটিতে পুলিশ লেখা ছিল বলে জানা গিয়েছে। তাতেই পুলিশ আধিকারিকদের অনুমান বাইক আরোহী পুলিশের কর্মী হতে পারেন। বাসের চালক সহ প্রায় ১২ জন যাত্রী আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে চার জন গুরুতর ভাবে জখম হয়েছে। আহতদের এসএসকেএম হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

- Sponsored -

- Sponsored -

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের অনুমান, সম্ভবত মিনি বাসটি ব্রেক ফেল করেছিল। অনেক সময় চালক এই ধরণের পরিস্থিতিতে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগিয়ে গাড়ি থামানোর চেষ্টা করেন। আর এক্ষেত্রেও তেমনটা করার চেষ্টা করা হয়েছিল। তবে মিনি বাসটির গতিবেগ বেশী থাকার কারণে গাছ ভেঙে গিয়ে সজোরে পাঁচিলে ধাক্কা মারে।

পরে পুলিশ কমিশনার সৌমেন মিত্র ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে জানান, “দুর্ঘটনাগ্রস্ত বাসের মেকানিক্যাল পরীক্ষা করা হবে। এই দুর্ঘটনায় ওই বাইক আরোহী প্রাণ হারান”। আপাতত গার্ডরেল দিয়ে ঘটনাস্থলটিকে ঘিরে রাখা হয়েছে।

ফোর্ট উইলিয়াম এলাকায় থাকা বেশ কয়েকটি সিসিটিভি রয়েছে। দুর্ঘটনার কারণ জানতে সেই সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বাস চালক মদ্যপ অবস্থায় ছিলেন কিনা তাও খতিয়ে দেখা হবে। এই দুর্ঘটনার জন্য দীর্ঘক্ষণ হেস্টিংস থেকে ধর্মতলামুখী রাস্তায় যানজট তৈরী হয়।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার সাঁতরাগাছি থেকে খিদিরপুরগামী একটি বিশাল ট্যাঙ্কার দ্বিতীয় হুগলি সেতুতে ওঠার মুখে যে বাঁক আছে সেখানে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নীচের ফোর্ট উইলিয়াম ক্যাম্পাসের পাঁচিলে উল্টে পড়ে। ওই ঘটনায় খালাসি সহ চালক দু’জনেই আহত হয়েছিলেন।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored

- Sponsored