Indian Prime Time
True News only ....

বিজেপি কর্মীর দোকান খুলতে এগিয়ে আসলেন তৃণমূল বিধায়ক

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored -

ADVERTISMENT

ADVERTISMENT

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ রাজগঞ্জঃ বিধানসভার ভোটের ফল প্রকাশ্যে আসার পরেই রাজ্য জুড়ে রাজনৈতিক হিংসা অব্যাহত রয়েছে। কিন্তু এরকম এক উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে দক্ষিণ দিনাজপুরের রাজগঞ্জ বিধানসভার তৃণমূল কর্মীরা শান্তির বার্তা নিয়ে আসলো।

রাজগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী খগেশ্বর রায় বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। তবে সেই বিধানসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত সুখানি গ্রাম পঞ্চায়েতের মঘাপাড়া গ্রামের বিজেপি কর্মী প্রদেশ পাল এলাকাতে তৃণমূল কর্মীদের ভয়ে দোকান খুলতে সাহস পাচ্ছিলেন না। তাই নব নির্বাচিত বিধায়ক খগেশ্বর রায় প্রদেশ পালকে দোকান খুলতে সাহস জোগালেন। বিধায়কের নির্দেশ পেয়েই তৃণমূল কর্মীরা তার দোকান খুলতে এগিয়ে আসেন। এরপর মিষ্টিমুখ করিয়ে প্রদেশ পালের দোকান খুলে দেওয়া হয়।

- Sponsored -

- Sponsored -

এই প্রসঙ্গে রাজগঞ্জের বিধায়ক খগেশ্বর রায় জানান, “নির্বাচনের ফল ঘোষণা হতেই রাজগঞ্জের কয়েকটি এলাকায় গণ্ডগোল চলছিল। সেই গণ্ডগোল থামাতে প্রশাসনের উদ্যোগের পাশাপাশি আমি বিধায়ক হিসেবে নিজেও উদ্যোগ নিই। যখনই খবর পাই যে বিজেপি কর্মী দোকান খুলতে ভয় পাচ্ছে তখনই স্থানীয় নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দিই যাতে শান্তির পরিবেশ বজায় রাখা যায়। এছাড়া বিজেপি কর্মীর দোকান খোলার ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিই। কোথাও কোনোরকম গণ্ডগোল বরদাস্থ করা হবে না। দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশ অনুযায়ী সব সময় মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যেতে হবে। এমনকি আগামী দিনেও কোনো গণ্ডগোলের খবর পেলে কড়া হাতে পদক্ষেপ গ্রহণ করব”।

এই প্রসঙ্গে বলা যায় যে, কলকাতার মানিকতলা বিধানসভার অন্তর্গত বাগমারী অঞ্চলেও বিজেপি কর্মীরা নির্বাচনী ফল প্রকাশ হতেই ঘর ছাড়া হয়েছিলেন। দোকান খুলতে ভয় পাচ্ছিলেন। সেই সময় তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ নিজের উদ্যোগ নিয়ে ঘরছাড়া বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে ফেরার ব্যবস্থা করার সাথে সাথে তাদের মিষ্টিমুখ করিয়ে দোকান খুলিয়ে রাজনৈতিক ক্ষেত্রে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করেন।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored

- Sponsored