Indian Prime Time
True News only ....

দোকানে ভাঙচুরের অভিযোগকে ঘিরে তৃণমুল-বিজেপি সংঘর্ষ

- sponsored -

- sponsored -

ADVERTISMENT

ADVERTISMENT

- Sponsored -

- Sponsored -

রাজ খানঃ বর্ধমানঃ পূর্ব বর্ধমানে ভোট পরবর্তী অশান্তি অব্যাহত। চায়ের দোকানে ভাঙচুরের অভিযোগ তৃণমুলের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে মেমারি থানার চকদিঘী মোড় এলাকায় ঘটেছে।

চায়ের দোকানের মালিক বাসুদেব দের অভিযোগ, “তার দোকানের সামনের চালের একটি বাঁশ ভেঙে যাওয়ায় সেই বাঁশটি পরিবর্তন করছিলেন। সেই সময় তাকে তৃণমুলের কয়েকজন এসে বাধা দেয়। আর বাঁশ পরিবর্তনের জন্য পৌরসভার অনুমতি দেখতে চাওয়া হয়। ঠিক তখনই উভয়ই তর্কাতর্কি থেকে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে”।

বাসুদেব দের আরো অভিযোগ যে, “তৃণমূলের কর্মীরা তার দোকান ভাঙচুর করার পাশাপাশি তাকে মারধরও করে। এছাড়া তার দোকানে বিজেপি কর্মীরা চা খেতে আসার কারণে দোকানে হামলা চালানো হয় বলে জানানো হয়”।

- Sponsored -

- Sponsored -

এই বিষয়ে মলয় ঘোষের দাবী, “এদিন সকালে যখন তিন থেকে চারজন মিলে বাসুদেব বাবুর দোকানে চা খেতে যাই। সেই সময়ের রাজনৈতিক প্রসঙ্গ নিয়ে দোকানে আলোচনা চলছিল। হঠাৎই বাসুদেব বাবু চাকু নিয়ে তাদের ওপর আক্রমণ চালায়”।

মেমারি পৌরসভার প্রশাসক বোর্ডের সদস্য তথা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক সুপ্রিয় সামন্ত বলেছেন, “বাসুদেব বাবু পৌরসভার অনুমতি না নিয়ে একটি অবৈধ কনস্ট্রাকশন করছিল। তাই বাসুদেব বাবুকে ওয়ার্ড কমিটির মেম্বার বাধা দিতে গেলে তার ওপর চাকু নিয়ে হামলা করা হয়”।

অন্যদিকে বিজেপির পাল্টা অভিযোগ, “নির্বাচনে তৃণমূলের হার নিশ্চিত জেনে তারা আখের গোছাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। তা না হলে একটি বাঁশ পাল্টে ফেলার জন্য কখনো অনুমতির প্রয়োজন হয় না। আর এটা যদি বেআইনী হয়ে থাকে তাহলে মেমারি থানার সামনে সরকারী জায়গায় নীচে দোকান ও উপরে তৃণমুলের পার্টি অফিস কি করে বেআইনী ভাবে হল”।

গোটা বিষয় নিয়ে দুই পক্ষই মেমারি থানায় একে অপরের বিরুদ্ধে নালিশ জানায়।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored

- Sponsored