Indian Prime Time
True News only ....

অনলাইনেই অধ্যাপিকার থেকে শুনতে হলো অকথ্য ভাষা

- sponsored -

- sponsored -

ADVERTISMENT

ADVERTISMENT

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ পশ্চিম মেদিনীপুরঃ অনলাইনের মাধ্যমে তফশিলী জাতি-উপজাতিদের ইংরেজির প্রিপারেটরি ক্লাস চলাকালীনই আইআইটি খড়গপুরের হিউম্যানিটি অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্সের অ্যাসিট্যান্ট অধ্যাপিকা সীমা সিং এর কাছ থেকে পড়ূয়াদের শুনতে হলো অকথ্য গালিগালাজ। ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। এরপরই নেটিজেন থেকে পড়ুয়া সকলেই অধ্যাপিকার ইস্তফার দাবীতে সরব হয়।

জানা গেছে, গত রবিবার সন্ধেবেলা খড়গপুর আইআইটি কনফেশনস নামে ফেসবুক পেজে একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়। সেই ভিডিওতে দেখা যায় জাতীয় সঙ্গীতের সময় পড়ুয়ারা উঠে দাঁড়ায়নি ও ‘‌ভারত মাতা কি জয়’‌ বলেনি তাই ওই অধ্যাপিকা পড়ুয়াদের ‘‌ব্লাডি’.‌.‌.‌.‌বলে গালিগালাজ করার পাশাপাশি ক্লাস থেকে বের করে দেওয়া এবং পরীক্ষায় ফেল করিয়ে দেওয়ার হুমকিও দেয়।

এছাড়া ওই অধ্যাপিকা ছাত্রছাত্রীদের ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলার জন্য চাপ দিয়ে বলছেন, “তোমার দেশের জন্য এইটুকু করতে পার না”। এমনকি অনলাইন ক্লাস চলাকালীন এক পড়ুয়া দাদুর শেষকৃত্যের জন্য ছুটি চাইলে তিনি সেই ছুটি নাকচ করে জানিয়েছিলেন, “আমিও একজন হিন্দু। আমি জানি শেষকৃত্যে অনেক নিয়ম রয়েছে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে সেই সব নিয়ম বাতিল করা হয়েছে”।

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored -

ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওতে অধ্যাপিকাকে এও বলতে শোনা গেছে যে, “নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রক অথবা তফশিলী জাতি-উপজাতি সংখ্যালঘু উন্নয়ন মন্ত্রকে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে কোনোরকম লাভ হবে না। কোনোভাবেই আমার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হবে না”।

কিন্তু এই প্রসঙ্গে একজন ছাত্র বলে দিয়েছেন, “ওই দিন ক্লাসের সকলেই উঠে দাঁড়িয়েছিল। তবে অধ্যাপিকার মনে হয়েছিল অনেকে বসে আছে”।

আইআইটি খড়গপুরের পড়ুয়ারাও জানিয়ে দিয়েছেন, “অধ্যাপিকা ক্লাসে বাড়াবাড়ি করেছিলেন। অধ্যাপিকার এই মন্তব্যে পড়ুয়ারা সহ তাদের অভিভাবকরাও অপমানিত হয়েছেন”।

যদিও এই ঘটনায় ওই অধ্যাপিকার পক্ষ থেকে কোনোরকম প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

- Sponsored -

- Sponsored -

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored

- Sponsored