Indian Prime Time
True News only ....

একই খাবারে নিয়ন্ত্রণে থাকবে ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ

- Sponsored -

- Sponsored -

ADVERTISMENT

ADVERTISMENT

মিনাক্ষী দাসঃ ডায়াবেটিসের সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে উচ্চ রক্তচাপ। অত্যধিক মানসিক চাপ ও অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভাসের জেরে ডায়াবেটিসের পাশাপাশি উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকিও দিন দিন বেড়েই চলেছে। নিয়মিত শরীরচর্চা এবং খাদ্য তালিকায় পরিবর্তন আনতে না পারলে এই দু’টি শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে না।  

এমন কিছু কিছু খাবার আছে যা ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপ কমাতে দারুণ কার্যকরী। সেগুলি হলোঃ

জামঃ গ্রীষ্মকাল মানেই জামের মরসুম। এই ফল রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা বাড়ায়। পটাশিয়ামে ভরপুর এই ফল উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভুগছেন এমন রোগীদের জন্য বেশ উপকারী। হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি কমায়। এমনকি শরীরে ইনসুলিন হরমোনের সক্রিয়তা বাড়ায় যা রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে।

- Sponsored -

- Sponsored -

বিটঃ যেকোনো ঋতুতেই বিট পাওয়া যায়। বিটের মধ্যে থাকা ফোলেট রক্তবাহিকাগুলি ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করে। এছাড়া বিটে থাকা নাইট্রিক অক্সাইড রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে করতে সাহায্য করে। বিটে উপস্থিত বেটালাইন ও নিও বেটানিন যৌগ রক্তে শরর্কার মাত্রা হ্রাস করে ইনসুলিনের কার্যকারীতা বাড়ায়। পাশাপাশি চোখও ভালো রাখে। 

রসুনঃ টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ক্ষেত্রে পুষ্টিবিদররা রসুন খাওয়ার পরামর্শ দেন। উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভুগলেও রসুন খাওয়া যেতে পারে। রসুনে থাকা অ্যালিসিন নামক যৌগ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

কুমড়োর বীজঃ ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য বেশীক্ষণ খালি পেটে থাকা একেবারেই উচিত নয়। হালকা খিদে পেলে কুমড়োর বীজ খাওয়া যেতে পারে। কুমড়োর বীজে থাকা ফাইবার রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। কুমড়োর বীজে থাকা ম্যাগনেশিয়াম এবং জিঙ্কের মতো খনিজ উপাদান রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে একান্ত সাহায্য করে।

- Sponsored -

- Sponsored -

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored

- Sponsored