Indian Prime Time
True News only ....

কাতর মিনতি জানিয়েও চিকিৎসা না মেলায় মৃত্যু হলো ১ শিশুর

- sponsored -

- sponsored -

ADVERTISMENT

ADVERTISMENT

- Sponsored -

- Sponsored -

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ অন্ধ্রপ্রদেশঃ করোনা পরিস্থিতিতে ভারতবর্ষ এক ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেছে। হাসপাতালের বেড ও অক্সিজেনের অভাবে মানুষ কাতরাচ্ছে। চলছে একের পর এক মৃত্যু মিছিল। চারিদিকে কান্নার ধ্বনি ভেসে উঠেছে।

এবার আরো এক হাড় হিম করা চিত্র উঠে এলো যা শুনে আপনারা চমকে উঠবেন। ঘটনাটি হলো অন্ধ্রপ্রদেশের। সেখানে করোনা আক্রান্ত দেড় বছরের শিশুকন্যা সরিথাকে মা-বাবা বিশাখাপত্তনমের কিং জর্জ হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু শিশুটির মা-বাবা ভিতরে ঢুকতে না পেরে আকুল হয়ে কাঁদতে শুরু করেন।

তখন হাসপাতালের বাইরে দাঁড়িয়ে থাকা সরিথার মা-বাবাকে কাঁদতে কাঁদতে বলতে শোনা গিয়েছে, “আমার মেয়েটাকে কেউ একটু বাঁচান। রাস্তায় ছেড়ে চলে গিয়েছে। দয়া করে বাঁচান”। কিন্তু সেই কান্না হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কান পর্যন্ত গেল না হাসপাতালের গেটের বাইরেই অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যেই সরিথার মৃত্যু হলো।  

তবে প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবী, “প্রায় দেড় ঘণ্টা শিশুকন্যাকে ওই হাসপাতালের এমার্জেন্সি ওয়ার্ডে ভর্তি করতে চেয়েও পারেননি। অবশেষে শিশুকন্যার হাসপাতালের গেটেই মৃত্যু হয়”। তার মৃত্যুর পর আত্মীয়-পরিজনরা হাসপাতালে চড়াও হয়ে বিক্ষোভ দেখান। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবী, করোনার কারণে শিশুটির আগেই মৃত্যু হয়েছিল।

- Sponsored -

- Sponsored -

এই ঘটনার পাশাপাশি উত্তরপ্রদেশের জৌনপু্রে এক বৃদ্ধের স্ত্রী করোনায় মারা গেছেন তাই গ্রামবাসীরা বৃদ্ধের স্ত্রীকে গ্রামে শেষকৃত্য করতে দিতে রাজি হয়নি। ফলে ওই বৃদ্ধকে করোনায় মৃত স্ত্রী’র দেহ সাইকেলে করে নিয়ে যেতে বাধ্য করা হলো।

তবে ওই বৃদ্ধ সাইকেলে মৃত স্ত্রী’কে নিয়ে যেতে যেতে শারীরিক দুর্বলতার কারণেই পড়ে যান। তাই কষ্টে নতজানু হয়ে ওই বৃদ্ধ মৃতা স্ত্রীর পাশে বসে থাকেন।

করোনা নামক এই অতিমারী যেন মানুষের মানবিকতাকে একেবারে মুছে দিচ্ছে। যার জেরে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এই ধরণের অসহায়ত্বের ছবি ভেসে আসছে। যেই ঘটনাগুলি বারবার মানূষকে শিউরে তুলছে।

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored

- Sponsored