Indian Prime Time
True News only ....

খুনের পর বছরখানেক গাড়ির ডিকিতেই রাখা ছিল মৃতদেহ

- sponsored -

- sponsored -

ব্যুরো নিউজঃ আমেরিকাঃ এ যেন চরম নির্মম ঘটনা। এক মহিলা তার বোনের ছেলেমেয়েকে খুন করে তাদের দেহ নিয়ে মাসের পর মাস ট্যাক্সি নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। গতকাল পুলিশ ওই মহিলাকে গ্রেপ্তার করে। এটি আমেরিকার বাল্টিমোরের ঘটনা। ধৃতের নাম নিকোল জনসন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নিকোলের ট্রাফিক আইন ভাঙাকে কেন্দ্র করে বোনের ছেলেমেয়েকে খুনের বিষয়টি সামনে আসে। গত বুধবার সে ট্রাফিক আইন ভেঙে জোরে গাড়ি চালানোর অপরাধে পুলিশ নিকোলকে ধরে। নিকোলের কাছে গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চাওয়া হলে সে সঠিক কাগজপত্র দেখাতে পারেননি।

দায়িত্বে থাকা পুলিশ আধিকারিক নিকোলকে গাড়ি তুলে নিয়ে যাওয়ার কথা বললে নিকোল কোনো আপত্তি জানাননি। বরং তিনি জানান, গাড়ি নিয়ে যেতে পারেন। কারণ নিকোল পাঁচ দিন বাড়িতে থাকবেন না। এরপরই নিকোল বলেন, “খুব শীঘ্রই খবরের শিরোনামে আসতে চলেছি”।

- Sponsored -

- Sponsored -

কিন্তু নিকোল গাড়ির ডিকি খুলতেই দুর্গন্ধ ভেসে আসে। ডিকিতে একটি বাক্স ছিল। সেই বাক্সের মধ্যে হাড়-মাংস গলা একটি শিশুর দেহ রয়েছে। আর তার পাশেই আরো একটি শিশুর পচাগলা দেহ রয়েছে। এরপরই নিকোলকে গ্রেপ্তারকে করা হয়।

পুলিশী জেরায় নিকোল জানিয়েছে, “তাকে ভরসা করে ২০১৯ সালে তার বোন ছেলেমেয়েকে তার কাছে রেখে গিয়েছিল। ২০২০ সালের মে মাসে ছেলেটিকে খুন করে তার দেহ স্যুটকেসে ভরে গাড়ির ডিকিতে ঢুকিয়ে দেন। ছেলেটিকে খুন করার কয়েক দিন পর আবার মেয়েটিকে খুন করেন। তারপর এক বছর ধরে ওই গাড়িতেই দু’টি শিশুর দেহ নিয়ে ঘোরাফেরা করেছেন”। পুলিশের পক্ষ থেকে এই খুন কি কারণে করা হয়েছে তা নিয়ে তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

- Sponsored -

- Sponsored -

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored

- Sponsored