Indian Prime Time
True News only ....

প্রতিবেশীর অত্যাচারে নষ্ট হয়ে গেল অন্তঃসত্ত্বার চার মাসের ভ্রূণ

- sponsored -

- sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored -

ADVERTISMENT

ADVERTISMENT

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ হাওড়াঃ হাওড়ার লিলুয়ায় অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি মেরে ভ্রূণ নষ্ট করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। এমনকি স্থানীয় এক জন তৃণমূল নেতা এই হামলার নেতৃত্ব দিয়েছেন।

অভিযোগ উঠেছে যে, স্বামী বাড়ির সামনে বৃষ্টির জলে ভেসে আসা জঞ্জাল পরিষ্কার করার সময় প্রতিবেশী লক্ষ্মী তালুকদারের সাথে বচসা শুরু হয়। অশান্তি সাময়িক ভাবে কমে গেলেও রাতেরবেলা লক্ষ্মী দেবী, তার স্বামী প্রেমানন্দ তালুকদার ও ছেলে রবিন তালুকদার প্রায় পনেরো জন সশস্ত্র দুষ্কৃতীদের নিয়ে তাদের বাড়িতে চড়াও হন।
এরপর ওই মহিলা কারণ জিজ্ঞাসা করায় তিন থেকে চার জন তার উপর চড়াও হয়ে ছুরি এবং রড নিয়ে মারতে এসেছিল। ওদের হাতে বন্দুকও ছিল। এছাড়া ওই অন্তঃসত্ত্বার পেটে লাথি দেওয়ায় চার মাসের ভ্রূণ নষ্ট হয়ে গিয়েছে। তারপর ব্যাপক মারধরও করা হয়।  

নির্যাতিতার পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই মহিলাকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাওড়া জেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। আর সেখান থেকে বাড়ি ফেরার পরে হুমকিও দেওয়া হয়। এরপরেই লিলুয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলে পুলিশ অভিযুক্ত প্রেমানন্দবাবু এবং রবিনকে গ্রেফতার করেন।

- Sponsored -

- Sponsored -

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, পারিবারিক ঝামেলার জেরে এই ঘটনা ঘটেছে। এরসাথে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই। ওই কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত কেশব হালদার যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, ‘‘ঘটনার দিন সন্ধেবেলা আমি ওখানে ছিলাম না। এই ঘটনার বিন্দুবিসর্গ জানি না।’’

জেলার সদরের তৃণমূল সভাপতি কল্যাণ ঘোষ এই বিষয়ে বলেন, ‘‘বিষয়টি কি ঘটেছে তা জানি না। খোঁজ নেব। তবে আইন আইনের পথে চলবে।’’

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

- Sponsored -

- Sponsored -

- Sponsored

- Sponsored